মায়ের কোলে ছিল আট মাসের শিশুটি। মা তাকে নিয়ে রাস্তা পার হচ্ছিলেন। আচমকা একটি বাস এসে দিল প্রচণ্ড ধাক্কা। মায়ের কোল থেকে ছিটকে রাস্তায় গিয়ে পড়ল শিশুটি। গুরুতর আহত হয় শিশুটি। আজ বৃহস্পতিবার ভোররাত সাড়ে চারটায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছে সে।

নাম তার আকিফা খাতুন। শিশুটির বাবা সবজি বিক্রেতা হারুন অর রশিদ প্রথম আলোকে বলেন, ‘লাশ আমরা গ্রামের বাড়িতে নিয়ে যাব।’

গত মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে কুষ্টিয়া শহরের চৌড়হাস মোড় এলাকায় আকিফাকে কোলে নিয়ে রাস্তা পার হচ্ছিলেন তার মা রিনা খাতুন। এ সময় একটি বাস তাঁদের ধাক্কা দিলে মায়ের কোল থেকে ছিটকে পড়ে আকিফা। এতে গুরুতর আহত হয় সে।

এ ঘটনার ভিডিও ফুটেজ রাস্তার ধারে থাকা একটি দোকানের সিসি ক্যামেরায় ধারণ হয়। ফুটেজে দেখা যায়, বাসটি দাঁড়িয়ে ছিল। বাসের সামনে দিয়ে যাওয়ার সময় বাসটি চলতে শুরু করে। এতে ধাক্কা লাগে। এমন ফুটেজ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়। বিচারের দাবিতে মানববন্ধনও হয়েছে।

পুলিশ ও পরিবার সূত্র জানায়, মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে রাজশাহী থেকে ফরিদপুরগামী একটি বাস কুষ্টিয়া শহরের চৌড়হাস মোড় এলাকায় যাত্রী ওঠানো ও নামানোর জন্য দাঁড়িয়ে ছিল। সে সময় থেমে থাকা বাসের সামনে দিয়ে আট মাসের আকিফাকে কোলে নিয়ে রাস্তা পার হচ্ছিলেন রিনা খাতুন। কোনো হর্ন না বাজিয়েই বাসটি চলতে শুরু করে। বাসের ধাক্কায় মায়ের কোল থেকে রাস্তায় ছিটকে পড়ে আকিফা। বাসটি দ্রুত চলে যায়। স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় রিনা খাতুন তাঁর মেয়েকে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে শিশুটির অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

গতকাল বুধবার ঘটনাস্থলে স্থানীয় বাসিন্দাসহ স্কুলের শিক্ষার্থীরা বিচারের দাবিতে মানববন্ধন করে।

কুষ্টিয়া মডেল থানার পরিদর্শক (অপারেশন) শেখ ওবায়দুল্লাহ বলেন, পরিবারের পক্ষ থেকে মামলা দিলে আইনগত পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

Leave a Reply

  • (not be published)