সময় ডেস্ক ll পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকারের সর্বোচ্চ পুরস্কার ‘বঙ্গভূষণ’ পদক দিয়ে সম্মানিত করা হল রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যাকে। শনিবার সন্ধ্যায় কলকাতার নজরুল মঞ্চে রবীন্দ্র সঙ্গীতশিল্পী রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যাকে ২০১৭ সালের ‘বঙ্গভূষণ’ পুরস্কার তুলে দেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি।

পুরস্কার বাবদ নগদ এক লাখ রুপি, উত্তরীয় ও একটি স্মারক শিল্পীর হাতে তুলে দেয়া হয়। ‘বঙ্গভূষণ’ পুরস্কার পেলেন সঙ্গীতশিল্পী খিজমত ফকির, লোকনৃত্য শিল্পী গণৎ রাভা, লোকশিল্পী লক্ষণ দাস বাউল, যাত্রাশিল্পী চপল ভাদুরী, চিকিৎসক অভিজিৎ চৌধুরী।

অন্যদিকে ‘বঙ্গবিভূষণ’ পুরস্কার দেয়া হয় অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়, কবি নীরেন্দ্রনাথ চক্রবর্তী, চিকিৎসক ধীমান গঙ্গোপাধ্যায়, শিল্পপতি ওয়াইসি দেবেশ্বর, মিজোরামের সাবেক রাজ্যপাল ও পশ্চিমবঙ্গ পুলিশের সাবেক ডিজি অরুণ প্রসাদ মুখোপাধ্যায়কে।

মমতা ব্যানার্জি বলেন, আজকের এই দিনটা আমাদের কাছে খুবই ঐতিহাসিক ও স্মরণীয় দিন। ২০১১ সালের ২০ মে আমাদের মা-মাটি-মানুষের সরকার শপথ গ্রহণ করেছিল। তাই এই দিনটিতে আমরা বাংলার বিশিষ্ট মানুষদের বঙ্গবিভূষণ ও বঙ্গভূষণ সম্মাননা দিয়ে থাকি। এটা আমাদের সরকারের সর্বোচ্চ পুরস্কার। এই সম্মান অনেক বড় এক সম্মান।

মমতা আরও বলেন, বঙ্গবিভূষণ ও বঙ্গভূষণ পুরস্কারের কথা যখন আসে তখন গর্ব করতে ইচ্ছা করে। কী নেই বাংলায়? বাংলার প্রতিভা, বাংলার গর্ব, বাংলার সবুজ, বাংলার মাটি- কী নেই? এখানে সব আছে। আমাদের লক্ষ্য হল বাংলা হোক বিশ্বসেরা। আজকে আমরা গর্বিত যে বাংলার মাটিতে জন্মগ্রহণ করেছি।

২০১২ সাল থেকে সমাজে বিশেষ অবদানের জন্য বিশিষ্ট ব্যক্তিদের এই সর্বোচ্চ সম্মাননা দিয়ে আসছে তৃণমূল কংগ্রেসের সরকার। সর্বপ্রথম এই পুরস্কার পান বিশিষ্ট নৃত্যশিল্পী অমলা শঙ্কর। ২০১৫ সালে মরণোত্তর ‘বঙ্গবিভূষণ’ পুরস্কার দেয়া হয়েছিল নজরুলগীতি শিল্পী প্রয়াত ফিরোজা বেগমকে।

Leave a Reply

  • (not be published)