ফলাফলের দিক থেকে উপজেলা পর্যায়ে সবসময় এগিয়ে থাকলেও প্রতিষ্ঠানের অবকাঠামো মারাত্মক ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায়। চাঁদপুরের শাহরাস্তি উপজেলার চিতোষী পূর্ব ইউনিয়নের তৈত্বশর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ঝুঁকিপূর্ণ ভবনে গত ৫ বছর ধরে চলছে পাঠদান কার্যক্রম। স্কুলের প্রধান শিক্ষিকা মনজুমা বেগম জানান, ১৯৭০ সালে এলাকার মানুষের মধ্যে শিক্ষার আলো ছড়িয়ে দিতে সরকারিভাবে বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠিত করা হয়। সেই থেকে এর পথ চলা শুরু হলেও এখন অবকাঠামোগত সমস্যার কারণে পাঠদান বিঘিœত হচ্ছে। বিশেষ করে ভবনটি হয়ে পড়েছে ঝুঁকিপূর্ণ। যে কোনো মহূর্তে ধসে পড়তে পারে ভবনটি। ফলে আতঙ্কে আছি, আমাদের শিক্ষার্থীরাও আতঙ্কিত। তিনি আরো বলেন, এ ভবনটিকে অনেক আগেই ঝুঁকিপূর্ণ তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছিল। সরেজমিনে দেখা যায়, ভবনের ফ্লোর দেবে গেছে, আস্তর উঠে গেছে, দেয়াল ধসে এক অংশ পুকুরে পড়ে গেছে। উপরে চালা (টিনশেড) থাকায় ঝড় বৃষ্টিতে ক্লাস করতে শিক্ষার্থীদের সমস্যা হচ্ছে। শ্রেণীকক্ষের সঙ্কট রয়েছে। শ্রেণীকক্ষে বেঞ্চ, বৈদ্যুতিক পাখা ও টয়লেট সঙ্কটও রয়েছে। তাছাড়া ৬ জন শিক্ষকের স্থলে ৩ জনের জোড়তালি দিয়ে পাঠদান চললেও প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষায় উপজেলা পর্যায়ে এগিয়ে রয়েছে। এ ব্যাপারে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মো. সিরাজুল ইসলাম বলেন, আমি বিদ্যালয়টি দেখেছি, জরাজীর্ণ তালিকায় এটিকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি শামসুল হক বলেন, তৈত্বশ্বর, নাগবাড়িয়া ও বেততোলা গ্রামের শিক্ষার্থীরা এ বিদ্যালয়ে পড়ালেখা করছে। এই প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার মান বেড়েছে, কিন্তু বাড়েনি বিদ্যালয়ের অবকাঠামো উন্নয়ন। সামনে ঝড়-বৃষ্টি শুরু হলে ভবনটির অবস্থা কি হবে জানি না।

Leave a Reply

  • (not be published)