সময় ডেস্ক ll বগুড়ার পুলিশ লাইনস স্কুল অ্যান্ড কলেজ মিলনায়তনে গতকাল মঙ্গলবার শুরু হয়েছে কৈশোর-তারুণ্যের বইমেলা। ‘কৈশোর তারুণ্যের বই’-এর আয়োজন নিয়ে শ্রেণিকক্ষের পাশে তিন দিনব্যাপী এই মেলার উদ্বোধন করেন পুলিশ লাইনস স্কুল অ্যান্ড কলেজের পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি ও বগুড়ার পুলিশ সুপার মো. আসাদুজ্জামান।
আনন্দময় কৈশোরের জন্য পাঠ্যবইয়ের বাইরে সৃজনশীল ও মননশীল জ্ঞানের বইয়ের সঙ্গে খুদে পাঠকদের পরিচয় করে দিতে কয়েকটি প্রকাশনা প্রতিষ্ঠানের উদ্যোগে বিদ্যালয়ভিত্তিক এই কৈশোর-তারুণ্যের বইমেলার আয়োজন করা হয়েছে।
কৈশোর-তারুণ্যের বইমেলায় সৃজনশীল বইয়ের পসরা সাজিয়ে বসেছে প্রথমা প্রকাশন, জাগৃতি প্রকাশনী, অনন্যা, অনুপম, অ্যাডর্ন পাবলিকেশনস, ইউনিভার্সিটি প্রেস লিমিটেড, ইকরিমিকরি, কাকলী প্রকাশনী, প্রতীক প্রকাশনা সংস্থা ও সময় প্রকাশন।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে পুলিশ সুপার বলেন, বই মানুষকে আলোকিত করে। অজানাকে জানার তৃষ্ণা মেটায়। পৃথিবীকে জয় করার স্বপ্ন দেখায়। সফলতার শিখরে উঠতে সাহায্য করে। বই পড়ে কেউ দেউলিয়া হয় না। বই পড়তে হবে। পৃথিবীকে জানতে হবে।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অ্যাডর্ন পাবলিকেশনসের কর্ণধার জাকির হোসেন বলেন, পর্যায়ক্রমে সারা দেশের সব জেলার সেরা বিদ্যালয়ে শ্রেণিকক্ষের পাশে এই মেলার আয়োজন করা হবে। সৃজনশীল বইয়ের দুনিয়ার সঙ্গে খুদে শিক্ষার্থীর সেতুবন্ধ তৈরি করতেই কৈশোর-তারুণ্যের বইমেলার এই আয়োজন।
এর আগে ২০ মে বগুড়ার বিয়াম মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজে তিন দিনব্যাপী এই বইমেলা অনুষ্ঠিত হয়।

Leave a Reply

  • (not be published)