বরিশালের উজিরপুর উপজেলার বড়াকোঠা ইউনিয়নের গাজিরপার গ্রামের এক রিকশা চালকের স্ত্রীকে (২৮) গণধর্ষণ করে ভিডিও ধারণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় ধর্ষিতা গৃহবধূর দায়ের করা মামলায় একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। উজিরপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) ইকবাল হোসেন গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, ১৪ জানুয়ারি সন্ধ্যায় ওই নারী ডাবেরকুল বাজারের ছোটগলি দিয়ে যাচ্ছিলেন। এসময় সোহেল তালুকদারের দোকানে আগে থেকে ওঁৎ পেতে থাকা একই এলাকার শামীম মহাজন ওই নারীকে জোরপূর্বক দোকানের ভেতরে টেনে নিয়ে যায়। সেখানে শামীম ছাড়াও আরও ছিল তার সহযোগী সেলিম বেপারী, সোহেল তালুকদার ও আলী জাকের বেপারী। সবাই মিলে ওই নারীকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে।
অন্যরা ওই নারীকে ধর্ষণ করার সময় শামীম তার মোবাইলে ধর্ষণের ভিডিও ধারণ করে। এ কাজে শামীমকে সহযোগিতা করে সান্টু বেপারী। ধর্ষণ শেষে ওই রাতেই ধর্ষিতাকে বাড়ির কাছে পৌঁছে দেয় ধর্ষকরা। এ ঘটনা কাউকে জানালে ধর্ষণের ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দেয় তারা।
ঘটনার দুই দিন পর সোমবার (১৬ জানুয়ারি) রাতে বাদী হয়ে উজিরপুর থানায় উপর্যুক্ত পাঁচ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন ধর্ষিতা গৃহবধূ।
মামলা দায়েরের পরেই আসামিদের গ্রেফতারের জন্য অভিযান শুরু হয়। মঙ্গলবার (১৭ জানুয়ারি) রাতে মামলার অন্যতম আসামি শামীম মহাজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। পরদিন বুধবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয় তাকে।
উজিরপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) ইকবাল হোসেন বলেন, ‘এ মামলার অন্য আসামিদের গ্রেফতারের জন্য পুলিশ অভিযান অব্যাহত রেখেছে। ’ ধর্ষিতাকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য বুধবার সকালে বরিশাল শেরে-ই বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে বলে জানান তিনি।

Leave a Reply

  • (not be published)